মিউচুয়াল ফান্ড কি এবং এর প্রকারভেদ | Mutual fund Investment in Bangladesh

মিউচুয়াল ফান্ড এর নাম শুনে থাকলেও এটা কি বা কাকে বলে অথবা এর প্রকারভেদ সম্পর্কে অনেকেরই জানি নেই। এক্ষেত্রে সচ্ছ ধারনা পেতে পড়ুন আর্টিকেলটি। আজকে আমি এই আর্টিকেল এর মাধ্যমে আমি আপনাদেরকে মিউচুয়াল ফান্ড কি এবং মিউচুয়াল ফান্ড কত প্রকারের এর সম্পূর্ণ বিস্তারিত বুঝিয়ে বলার চেষ্টা করব।

আমাদের মধ্যে প্রায় অসংখ্য মানুষ এমন আছেন যারা মিউচুয়াল ফান্ডের নাম শুনে কিছু না জেনেই অনেক ধরনের ভুল ধারণা নিজের মনে ভেবে বসে থাকেন।

তাই বলা যায় যে আমাদের আশপাশে থাকা ৭০ শতাংশ লোকই এই সম্পর্কে সঠিক জ্ঞান রাখেন না যার ফলে তারা মিউচুয়াল ফান্ডের নাম শুনলেই ভয় পান।

তাই আপনাদের এই ভুল ধারণাটা দূর করার জন্যই আমাদের আজকের এই আর্টিকেলটি লেখা। বর্তমানে মিউচুয়াল ফান্ডের টাকা বিনিয়োগ করে আই করাটা সবচেয়ে লাভজনক হিসেবে প্রমাণিত হয়েছে।

তাছাড়া অন্যান্য যেসব মার্কেটে থাকা মাধ্যম রয়েছে মিউচুয়াল ফান্ডের মতো তাদের থেকে মিউচুয়াল ফান্ড খুব বেশি লাভ দিচ্ছে এটা প্রমাণিত হয়েছে। তাহলে চলুন এবার জেনে নেওয়া যাক মিউচুয়াল ফান্ড আসলে কি?

মিউচুয়াল ফান্ড কি (What is Mutual fund)

মিউচুয়াল ফান্ড হল মূলত একটি fund বা স্কিম যেখানে সাধারনত আমরা আমাদের মতো অনেক বিনিয়োগকারীদের থেকে একসাথে পারস্পারিক ভাবে টাকা নিয়ে মার্কেটের অন্যান্য সম্পদ যেমন ধরুন স্টক্স এবং বন্ডে আবার বিনিয়োগ করা হয়ে থাকে।

আর এইভাবে মূলত আপনার কাছ থেকে টাকা নিয়ে মার্কেটের অন্যান্য সম্পদের বিনিয়োগ করার জন্য অনেক ধরনের মিউচুয়াল ফান্ড কোম্পানি বা Amcs রয়েছে।

আর সাধারনত প্রত্যেক Amc বাম মিউচুয়াল ফান্ড কোম্পানির প্রত্যক আলাদা আলাদা schemes বা ফান্ডগুলো পরিচালনা করার জন্য একটি করে প্রফেশনাল ফান্ড ম্যানেজার বা পোর্টফলিও ম্যানেজার থাকে।

তাছাড়া সহজভাবে যদি বলা যায়,মিউচুয়াল ফান্ড হল মূলত অনেক বিনিয়োগকারীদের কাছ থেকে নিয়ে তৈরি করা একটি ফান্ড।

আপনার এখানে রাখা টাকা গুলো ব্যবহার করে মিউচুয়াল ফান্ড কোম্পানি বাজারে থাকা অন্যান্য মার্কেটের কোম্পানিগুলোতে বিনিয়োগ করে থাকে বা ব্যবহার করে থাকেন।

আরফান ম্যানেজাররা মূলত এটাই চেষ্টা করে থাকে যেন মার্কেটের এমন কিছু লাভজনক সম্পদে যেন এটা বিনিয়োগ করা যায় যার ফলে বিনিয়োগকারীরা তাদের দেওয়া টাকার থেকে অধিক লাভ বা আয় কামিয়ে নিতে পারেন।

মিউচুয়াল ফান্ড এর প্রকারভেদ (Type of Mutual Fund)

মিউচুয়াল ফান্ড মূলত অনেক প্রকারের হতে পারে। কেননা মিউচুয়াল ফান্ডে বিনিয়োগ করার সময় আপনার কাছে অনেক ধরনের আলাদা আলাদা স্কিম থেকে থাকে।

তাই মূলত মিউচুয়াল ফান্ডের প্রকার গুলোকে তিনটি বিশেষ ভাগে ভাগ করা হয়েছে। যেমনঃ

  • structure বা গঠন হিসেবে ভাগ করা
  • Asset এর ওপরে মিউচুয়াল ফান্ডের প্রকার
  • intervel fund

গঠনিক হিসাবে মিউচুয়াল ফান্ডের প্রকার

সাধারণত গঠন বা স্ট্রাকচার হিসেবে মিউচাল ফান্ড স্কিম গুলোর দুটি প্রকার রয়েছে। নিম্মে খানিকটা ব্যাখ্যা করা যাক।

Open ended mutual fund

ওপেন ইন্ডডেট মিউচুয়াল ফান্ড এর স্কিন গুলোতে ইনভেস্টরস বা যে কোন সময় ফান্ড বা ইউনিট কিনতে বা চাইলে বিক্রি করতে পারবেন।

তাছাড়া এর মাধ্যমে আপনি যখন খুশি তখন ইউনিট কিনে বিনিয়োগ করতে পারবেন। আবার বিনিয়োগ করা টাকা খুব সহজে তুলে নিতে পারবেন।

আর সাধারনত এই ধরনের open-ended মিউচুয়াল ফান্ডের স্কিমে টাকা বিনিয়োগ করার বা টাকা তোলার কোন রকমের নিশ্চিত সময় দেওয়া থাকে না। আর তাই সাধারণত বিনিয়োগকারীরা এই ধরনের ওপেন ended স্কিম অনেক পছন্দ করে থাকেন।

Close Ended Mutual Fund

সাধারণত এই ধরনের স্কিমে আপনারা চাইলে যেকোন সময় বিনিয়োগ করতে পারবেননা। কেবল মূলত Nfo এর সময় এই ধরনের Close Ended Mutual Fund আপনারা বিনিয়োগ করতে পারবেন।

তাছাড়া আপনাকে এই ধরনের মিউচুয়াল ফান্ড স্কিম গুলোতে আপনাকে নির্ধারিত সময়ের জন্য টাকা বিনিয়োগ করতে হবে।

আপনার এই ক্ষেত্রে নির্দিষ্ট সময়ে এটা হতে পারে তিন বছর বা পাঁচ বছর সাত বছর এরকম হতে পারে। আপনারা চাইলে তার আগেই ইউনিট বিক্রি করে কোন সময়ই টাকা তুলতে পারবেন না।

Intervel mutual Fund

সাধারণত এই প্রকারের মিউচুয়াল ফান্ড স্কিম গুলো  close ended এবং open ended ফান্ড দুটিকে একত্রে মিলিয়ে তৈরি করা হয়েছে।

এখানে সাধারণত দুটি প্রকারেরই ফান্ডের সুবিধা দেওয়া হয়ে থাকে। ইন্টারভাল ফান্ডের স্কিম গুলোতে বিনিয়োগ করা টাকা তোলা বা ইউনিট বিক্রি করা কিছু নির্ধারিত সময়ের অন্তরে অন্তরে আপনারা করতে পারবেন।

আর মূলত এই নির্ধারিত সময়ের অন্তর গুলি আপনার ফান্ড হাউস বা মিউচুয়াল ফান্ড কোম্পানি নির্ধারণ করে থাকবে।

তাই সাধারণত এই ধরনের intervel funds গুলি প্রায় close ended funds গুলির মতোই, যেখানে মূলত বিনিয়োগকারীরা নিজের সুবিধা বা প্রয়োজন  হিসেবে invest বা redeem করতে পারেন না।

তাহলে স্ট্রাকচার ভাবে মিউচুয়াল ফান্ডের প্রকারের ব্যাপারেও আমরা জেনে গিয়েছি। তাহলে চলুন এবার জেনে নেওয়া যাক asset এর ওপরে মিউচুয়াল ফান্ড মূলত কত প্রকারের।

Asset (মিউচুয়াল ফান্ড কত প্রকারের)

Debt funds

সাধারণত এই ধরনের স্ক্যাম গুলোতে বিনিয়োগকারীদের ভয় অনেক কম থাকে। Debentures, government bond এবং অন্যান্য নিশ্চিতের মাধ্যমগুলোতে এই ধরনের স্কিম গুলো মূলত ইনভেস্ট করে থাকে।

তাই অনেক কম রিক্স এর সাথে আপনারা Debt মিউচুয়াল ফান্ডে ইনভেস্ট করার মাধ্যমে ৭% থেকে ৮% এর উপর ইন্টারেস্ট আয় আপনারা মূল টাকার উপর পেয়ে যাবেন।

প্রায় ১ থেকে ৫ বছরের জন্য যারা বিনিয়োগ করতে চান তারা চাইলে এই ফান্ডে বিনিয়োগ করতে পারেন।

Liquid mutual fund

যত মিউচুয়াল ফান্ড রয়েছ সবথেকে নির্ভরযোগ্য এবং বিশ্বস্ত ফান্ড হল এটি। কারণ এই ধরনের ইসকিন গুলোতে কেবল debet এবং মানি মার্কেট instrument গুলি যেমন, commercial paper, government Securities ও অন্যান্য ফিক্সড ইনকামের মাধ্যমগুলোতে বিনিয়োগ করে।

তাছাড়া এই ফাইলগুলো মূলত অনেক কম সময়ের জন্য বিনিয়োগ করার জন্য ব্যবহার করা হয়ে থাকে। তাই আপনারা চাইলে এই ফান্ডটিতে ও বিনিয়োগ করতে পারেন।

Equity funds

যদি আপনি অনেক বেশি সময় ধরে টাকা রাখতে চান এবং বেশি লাভ নিতে চান তাহলে আপনার জন্য এটি হতে পারে দারুন একটি মাধ্যম। এই ধরনের স্কিম  বা ফান্ডগুলো মূলত স্টক মার্কেটে বিনিয়োগ করে থাকে।

তাই এক্ষেত্রে আপনারা যত বেশি রিক্স নিতে পারবেন তত বেশি লাভবান হওয়ার সম্ভাবনা থাকবে। আপনাকে যদি এই ফান্ড থেকে ভালো টাকা লাভ করতে হয় তাহলে অবশ্যই 5 বছর সময় আপনাকে এখানে দিতেই হবে।

Money Markets

মানি মার্কেট মিউচুয়াল ফান্ড গুলো অনেক কম সময়ের জন্য বিনিয়োগ করে রিক্স কম নিয়ে লাভ করার মাধ্যমে টাকা রিটার্ন পাওয়ার দারুন একটি সুযোগ।

তাই আপনি যদি কোনো ভয় বা রিক্স ছাড়া কিছুদিনের জন্য টাকা বিনিয়োগ করতে চাচ্ছেন তাহলে আপনারা চাইলে money market funds এ বিনিয়োগ করতে পারেন।

এই মানি মার্কেট স্কিম গুলো শুধুমাত্র কিছু সুরক্ষিত জায়গায় বিনিয়োগ করে থাকে। তাই সাধারণত এখানে যারা বিনিয়োগ করে থাকেন তাদের টাকা ও এখানে সম্পূর্ণভাবে সুরক্ষিত থাকে।

যেহেতু আপনি এখানে তো অনেক কম সময়ের জন্য টাকা রাখছেন তাই এক্ষেত্রে আপনার লাভের পরিমাণ টা কিন্তু অনেক কম হবে। এছাড়াও বাংলাদেশ থেকে মিউচুয়াল ফান্ডে বিনিয়োগ করার সুবিধা সম্পর্কে।

আমাদের শেষ কথা

আশা করি যারা সম্পূর্ণ আর্টিকেলটি সম্পূর্ণ মনোযোগ সহকারে পড়েছেন তারা মিউচুয়াল ফান্ড কি এবং মিউচুয়াল ফান্ড কত প্রকার এবং কি কি তারা সব কিছুই বুঝতে পেরেছেন।

আর যারা মিউচুয়াল ফান্ডে বিনিয়োগ করতে ভয় পাচ্ছিলেন তারা হয়তো আজকে এই বিষয়গুলোর মাধ্যমে ক্লিয়ার হয়ে গিয়েছেন। তারপরও যদি কোন প্রশ্ন থেকে থাকে আমাকে কমেন্ট করে জানাবেন। পোস্টটি ভাল লেগে থাকলে অবশ্যই শেয়ার করুন।

Leave a Comment