পার্সোনাল ব্র্যান্ডিং : কি, কেনো এতো গুরুত্বপূর্ণ | কিভাবে পার্সোনাল ব্র্যান্ডিং করবো?

বিভিন্ন পরিস্থিতি বিবেচনায় পার্সোনাল ব্র্যান্ডিং বর্তমানে একটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। বর্তমানে চাকরির চাহিদা অনেক বেড়েছে কিন্তু চাকরি পাওয়া কঠিন বিষয় হয়ে গেছে।

কারণ যারা চাকরিতে নিয়োগ দেন, সেই নিয়োগকর্তারা এমন কাউকে খোঁজেন যে কিনা অন্য সাধারনের চেয়ে একটু বেশি এক্সপার্ট বা ভালো।

যদি আপনার ভালো পার্সোনাল ব্র্যান্ড থাকে আর আপনি সেটা সুন্দর মত নিয়োগকর্তার নিকট উপস্থাপন করেন, তাহলে আপনার চাকরি পাওয়ার সম্ভাবনা বেড়ে যায়।

পার্সোনাল ব্র্যান্ডিং এর দ্বারা শুধুমাত্র ব্যক্তি নিজে নয় তার অথবা অন্যের ব্যবসায় প্রতিষ্ঠান প্রচারণার জন্য গুরুত্বপূর্ণ। মূলত পার্সোনাল ব্র্যান্ডিংয়ে আপনাকে অন্য সবার চেয়ে আলাদা শো করে।

আমাদের আজকের আলোচনার বিষয় হল পার্সোনাল ব্র্যান্ডিং কি এবং এর উপকারিতা বিষয়। তো চলুন সেগুলো জেনে নেয়া যাকঃ

 

পার্সোনাল ব্র্যান্ডিং আসলে কি?

সহজ ভাষায় বললে, কোন ব্যক্তির পণ্য সেবার আলাদা বিশেষ একটি পরিচিতি কেই পার্সোনাল ব্র্যান্ডিং বলে। পরিচিতি শুধু ব্যবসায়িক পণ্য বা অন্য কিছুই নয় বরং ব্যক্তির নিজেরও হতে পারে।

একজন ব্যক্তি নিজেও একটি ব্র্যান্ড হতে পারে। আপনি যদি কোন প্রতিষ্ঠান করতে চান অথবা ডিজিটাল মার্কেটিং করতে চান বা মার্কেটার হতে চান, তাহলে পার্সোনাল ব্র্যান্ডিংয়ের ব্যাপারে আপনার বিস্তারিত ধারণা থাকা উচিত।

আমরা ব্র্যান্ড শব্দ টা প্রায় সবাই কমবেশি বুঝি। ব্র্যান্ড হল কোন নাম, শব্দ, লোগো, প্রতীক বা এমন কিছু, যা একজন ব্যক্তি বা বিক্রেতার পণ্য অথবা সেবাকে অন্যের চাইতে আলাদা করে।

আর একজন ব্যক্তির স্বকীয় বা ব্যক্তিগত ব্র্যান্ড থাকাটাই হল পার্সোনাল ব্র্যান্ডিং; যা মানুষকে সাধারণ জনগণের নিকট বিশেষভাবে পরিচিত করে। সেটা ব্যক্তির নিজস্ব কারণে হতে পারে বা তার পণ্য বা সেবার কারণেও হতে পারে।

 

পার্সোনাল ব্র্যান্ডিং এর উপকারিতা

বহুবিধ উপকারিতা রয়েছে পার্সোনাল ব্র্যান্ডিংয়ে। এর মাধ্যমে ব্যবসায়িক পণ্য সহজেই মার্কেটিং করা যায়, মানুষ বিশ্বাস করে ও পণ্য বা সেবা নিতে আগ্রহী হয়। এর ফলে ভালো পরিমাণে লাভবান হওয়া যায়। পার্সোনাল ব্র্যান্ডিংয়ের অনেকগুলো উপকারিতার মধ্যে কিছু উপকারিতা নিম্নে দেয়া হলঃ

বর্তমান সময়ে ভিড়ের মধ্যে বিশেষভাবে আপনার হাইলাইট হওয়ার জন্য পার্সোনাল ব্র্যান্ডিং গুরুত্বপূর্ণ। পার্সোনাল ব্র্যান্ডিংয়ের মাধ্যমে মানুষের দৃষ্টি আকর্ষণ করা যায়।

যদি আপনার পার্সোনাল ব্র্যান্ডিং থাকে তাহলে আপনি সুযোগ কাজে লাগাতে পারেন। যাদের পার্সোনাল ব্র্যান্ড রয়েছে, তাদেরকে সাধারণত চাকরির ক্ষেত্রে গুরুত্ব বেশি দেয়া হয়ে থাকে।

এছাড়াও বিভিন্ন মানুষের সাথে সম্পর্ক তৈরি করার বড় সুযোগ পাওয়া যায়। এর ফলে নিজের ব্যবসায়ীক লাভের পাশাপাশি নিজের ব্র্যান্ডিং আরো প্রচার-প্রসারের ক্ষেত্র তৈরি হয়।

তাছাড়া আপনি যদি একটি প্রতিষ্ঠানের মালিক হন অথবা আপনার পার্সোনাল ব্র্যান্ডিং পজিশন ভালো থাকে, তাহলে বিভিন্ন মানুষ আপনার সাথে পার্টনারশিপ অফার করতে পারে।

এছাড়া আপনি যদি কোথাও কর্মরত থাকেন তাহলে আপনার পদোন্নতি পাওয়ার সুযোগ থাকে।

তাছাড়া যাদের এই ইমেজ রয়েছে মানুষে থাকে তাদেরকে অন্যদের তুলনায় বেশি যোগ্য ভাবে। এর ফলে আর অনেক রকম উপকারিতা পাওয়া যায়।

পার্সোনাল ব্র্যান্ডিংয়ে পুরোটা জুড়েই আপনি কেন্দ্রবিন্দুতে থাকেন। ফলে আপনার কর্মজীবনটা সহজ, নির্ঝঞ্ঝাট এবং ঝামেলামুক্ত হওয়ার সম্ভাবনা থাকে।

পার্সোনাল ব্র্যান্ডিং করার কিছু সহজ কৌশল

হয়তো আপনি নিজেই পার্সোনাল ব্র্যান্ডিং করার কথা ভাবতে পারেন। কিন্তু কিভাবে শুরু করবেন? কী কী করবেন? এটা হয়তো জানেন না। আপনার সুবিধার্থে নিচে কিছু সহজ কৌশল তুলে ধরলামঃ-

 

১। কোন বিশেষ একটি কাজে নিজেকে দক্ষ করার চেষ্টা করুন। যদি এই চেষ্টায় সফল হয়ে যান, তাহলে ধরে নিতে পারেন যে আপনার প্রথম কাজটি হয়েছে।

২। আপনি যে বিশেষ কাজে দক্ষতা অর্জন করেছেন, সে কাজে ইউনিক বা বিশেষ দক্ষ হওয়ার চেষ্টা করুন যাতে মানুষ আকর্ষণ বোধ করে। তবে এটা থাকা জরুরী নয়। হলে উত্তম।

৩। আপনার কাজ রিলেটেড ওয়েবসাইট অথবা ব্লগ তৈরি করতে পারেন। বর্তমান সময়ের প্রেক্ষাপটে এটা গুরুত্বপূর্ণ।

৪। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমগুলোতে আপনার কাজটি ব্যাপকভাবে প্রচার করতে পারেন। কারণ পরিচিতি ছাড়া ব্র্যান্ডিং হয়না।

ফেসবুক, টুইটার, ব্লগার, পিন্টেরেস্ট, লিংকডইন প্রভৃতি সাইটে প্রচারণা চালাতে পারেন।

৫। বিভিন্ন মানুষের সাথে পরিচিত হবেন। সুন্দর ভাবে তাদের নিকট আপনার সার্ভিস উপস্থাপন করতে পারেন। তবে খেয়াল রাখবেন উপস্থাপন করতে গিয়ে যেন মানুষ বিরক্ত না হয়।

 

বর্তমান সময়ে বিভিন্ন ব্র্যান্ডের ভিড়ে নিজের পার্সোনাল ব্র্যান্ডের সফলতা প্রাপ্তি হল বড় কিছু। পার্সোনাল ব্র্যান্ডিং এর অনেক উপকারিতা রয়েছে। এটা আপনার ক্যারিয়ার সহজ হওয়ার জন্য গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। তাই আপনিও এ কাজে অগ্রসর হতে পারেন।

 

 

Leave a Comment