জন্ম নিবন্ধন অনলাইন চেক । অনলাইনে জন্ম নিবন্ধন চেক করার নিয়ম

আপনি কি জন্ম নিবন্ধন অনলাইন চেক করতে চাচ্ছেন? আপনার পূর্বে করা জন্ম নিবন্ধনটি হাতে করা ছিলো এবং নতুন নিয়ম অনুযায়ী সেটা অনলাইনে লিপিবদ্ধ আছে কি না সেটা জানতে চাচ্ছেন? অথবা সম্প্রতি করা জন্ম নিবন্ধনটির অনলাইন ভেরিফাই করতে চাচ্ছেন? হ্যা আপনি এগুলো থেকে যেটাই চেয়ে থাকেন না কেনো সমাধান মাত্র একটি। 

এবং সেটি হচ্ছে জন্ম নিবন্ধন অনলাইন চেক করার নিয়ম জেনে সেটা এপ্লাই করা। চিন্তার কোনো কারন নেই এই আর্টিকেলের মাধ্যমেই জানতে পারবেন কিভাবে অনলাইনে  ঘরে বসেই জন্ম নিবন্ধন চেক ও অনলাইন কপি ডাউনলোড করতে পারেবন। 

হ্যালো সবাইকে, আমি সেলিম মাহামুদ বলছিলাম Salim Speaking ব্লগ থেকে, যেখানে আমি প্রতিদিন বিভিন্ন টেক দুনিয়ার সার্ভিস সম্পর্কে এক্সপ্লেইন করে থাকি এবং খুঁটিনাটি সমস্যার সমাধান দিয়ে থাকি। তারই পেক্ষিতে আজকের বিষয় “জন্ম নিবন্ধন অনলাইন চেক করার নিয়ম” সম্পর্কে জানাবো বিস্তারিত। 

অনলাইনে জন্ম নিবন্ধন 

একটা সময় ছিলো যখন নবজাতক শিশুর জন্য নিবন্ধন করার জন্য সিটি কর্পোরেশন / ইউনিয়ন পরিষদে গিয়ে হাতে কলমে জন্ম নিবন্ধনের প্রতিটি প্রসেস এবং আউটপুট দেয়া হতো। তবে বিগত কয়েক বছর থেকে এই দৃশ্য একেবারেই বদলে গিয়েছে। এখন ছোট খাটো বিষয়ের জন্য অফলাইন অফিস গুলোতে যেতে হয় না বরং অনলাইনের মাধ্যমেই করা যায় বা জানা যায়। 

আপনি অনলাইনে জন্ম নিবন্ধন করার নিয়ম সম্পর্কে জেনে যেকোনো সময় তা করে ফেলতে পারেন। তবে আজকের মূল বিষয় অনলাইনে জন্ম নিবন্ধন করার নিয়ম সম্পর্কে জানানো না বরং সেটা করার পূর্ব প্রস্তুতি সংক্রান্ত বিষয়। এবং সেটি হলো – আপনার জন্ম নিবন্ধন যদি আগে করা থেকে থাকে তবে সেটা অনলাইনে সাবমিট করা আছে কি না তা যাচাই করা। চলুন দেখা যাক কিভাবে সেটা করবেন। 

জন্ম নিবন্ধন অনলাইন চেক করার নিয়ম 

এটি খুব সহজ একটি কাজ যা করা যাবে যেকোনো ডিভাইস দিয়ে, হোক আপনার কাছে মোবাইল ফোন আছে বা কম্পিউটার। অল্প কিছু ধাপ অনুসরণ করে পুরো বিষয়টি দেখানোর চেষ্টা করছি। 

প্রথমেই আপনাকে এই লিংক [ https://everify.bdris.gov.bd ] থেকে জন্ম নিবন্ধন ভেরিফাই করার পেইজটিতে যেতে হবে।

উক্ত লিংকটি সহজে খুজে পেতে সার্চ করুন এখানে থেকে

সেখানে বেশ কিছু অপশন থাকবে যা বুঝার সুবিধার্থে নিম্মে ছবির মাধ্যমে দেখানো হলো। 

10.08.2022 20.28.22 REC

Birthday Registration Number: এখানে জন্ম নিবন্ধনের ১৭ ডিজিটের নাম্বারটি প্রদান করতে হবে। যদি আপনার জন্ম নিবন্ধনটি হাতে লেখা হয়ে থাকে তবে সেখানে ১৬ ডিজিটের নাম্বার পাওয়া যাবে। এক্ষেত্রে করনীয় এই যে, শেষের ৫ ডিজিটের পূর্বে একটি ০ (শূন্য) যুক্ত করে ১৭ ডিজিট করে নিতে হবে। 

Date of Birthday: এই পর্যায়ে আপনাকে সেই ব্যক্তির জন্ম সাল, মাস, তারিখ দিতে হবে। সাবধানতার বিষয় এই যে, অনেকেই প্রথমে তারিখ – মাস – বছর দিয়ে থাকে, কিন্তু এটা করা যাবে না। তাহলে ফলাফল আসবে না। 

Number Captcha: সর্বশেষ একটি ক্যাপচা পূরণ করতে হবে। এখানে দুইটি সংখ্যরার যোগফল দিতে বলা হবে, সেটি দেয়ার পর সাবমিট বাটনে প্রেস করতে হবে। 

আপনার দেয়া তথ্য গুলো যদি সব সঠিক হয় তবে নতুন একটা পেজে জন্ম নিবন্ধনের পুরো বিস্তারিত তথ্য গুলো দেখানো হবে। বুজার সুবির্ধার্থে নিম্মের ছবিটি লক্ষ্য় করুন। 

জন্ম নিবন্ধন অনলাইন কপি

যদি তথ্য গুলো সাবমিট করার পর জন্ম নিবন্ধনটি না দেখায় তবে দুই ধরনের ভুল হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। প্রথমত, প্রদানকৃত জন্ম নিবন্ধনের নাম্বারটি ভুল হয়েছে অথবা আপনার হাতে করা জন্ম নিবন্ধনটি অনলাইনে সাবমিট করা নেই। সমস্যা যদি ২য় টা হয় তবে আপনাকে অবশ্যই জন্ম নিবন্ধনটি অনলাইনে সাবমিট করার জন্য আবেদন করতে হবে। 

জন্ম নিবন্ধন অনলাইনে ডাউনলোড করার নিয়ম 

সত্যি বলতে জন্ম নিবন্ধন অনলাইন কপি গ্রহনের অফিসিয়াল কোনো উপায় নেই। আপনাকে আসল কপি ইউনিয়ন পরিষদ থেকেই নিতে হবে। আর অনলাইনে যেটা পাবেন সেটা দিয়েও যাবতীয় কাজ করা যাবে কারন এখানে পর্যাপ্ত তথ্য থাকবে। তাহলে প্রশ্ন হচ্ছে কিভাবে ডাউনলোড করা যাবে? 

মূলত ডাউনলোডের জন্য স্পেসিফিক কোনো বাটন দেয়া থাকবে না। আপনি যদি কম্পিউটার থেকে উক্ত কাজটি করে থাকেন তবে কীবোর্ড থেকে Ctrl + P ক্লিক করলে পুরো পেজটি প্রিন্ট হয়ে PDF আকারে চলে আসবে। এর পর সেটাকে প্রিন্ট আউট করে ব্যবহার করা যাবে। 

আর যদি মোবাইল থেকে করে থাকেন তবে অবশ্যই Chrome ইউস করতে হবে এবং সেখানে ৩ ডটে ক্লিক করে প্রিন্ট নামক অপশন থেকে একই কাজটি করতে হবে। 

আর্টিকেল থেকে যা শিখলেন 

পরিশেষে, এই ছিলো জন্ম নিবন্ধন অনলাইন চেক করা সংক্রান্ত আর্টিকেলটি যেখানে জন্ম নিবন্ধন করা ও অনলাইনে ভেরিফাই করতে পারার বিষয়ে আলোচনা করা হয়েছে। জন্ম নিবন্ধন সম্পর্কে আরো কোনো জানার বিষয় থাকলে উক্ত লিংক থেকে দেখে নিতে পারেন। 

এমনই আরো সব ইন্টারেস্টিং সমস্যার সমাধানের জন্য ইমেইল সাবমিট করার মাধ্যমে সম্পূর্ণ ফ্রিতে সাবস্ক্রিপশন করে রাখুন। এতে করে পরবর্তীতে দেয়া সমাধান গুলো সম্পর্কে সবার আগে জানতে পারবেন।

Leave a Comment