গুঠিয়া মসজিদ । বরিশালের দর্শনীয় স্থান [Tour Guide]

লোকমুখে নাম গুঠিয়া মসজিদ হলেও প্রকৃত নামকরণ করা হয়েছিলো বাইতুল আমান জামে মসজিদ নামে। ২০০৬ সালে উজিরপুর থাকার গুঠিয়া ইউনিয়নে চাংগুরিয়া গ্রামে নির্মিত মসজিদটি এখন বরিশালের অন্যতম দর্শনীয় স্থান গুলোর মধ্যে একটি। 

কেউ বলে গুটিয়া মসজিদ কেউ বলে গুঠিয়া মসজিদ, কিন্তু প্রকৃত নাম একটিও নয়। মূলত ইউনিয়নের নামের সাথে মিল রেখে চেনার সুবিধার্থে লোকমুখে নাম হয়েছে গুঠিয়া মসজিদ। উক্ত মসজিদটির আসল নাম “বাইতুল আমান জামে মসজিদ” যা নির্মাণ শুরু হয় ২০০৩ সালে এবং ২০০৬ সালে কাজ সমাপ্ত হয়। মসজিদটির নির্মাণে অবদান রাখেন উক্ত গ্রামের ব্যবসায়ী এস. সারফুদ্দিন আহম্মেদ সান্টু। 

গুঠিয়া মসজিদে দর্শনীয় জিনিস ও খ্যাতির কারন 

“কেনো গুঠিয়া মসজিদ এতোটা জনপ্রিয়?” এই প্রশ্ন স্বাভাবিক ভাবেই যেকারো মাথায় ঘুরপাক খাবে। কি এমন আছে এই মসজিদে যাতে করে এতো নাম ডাক তার? আসুন জেনে নেই। গুঠিয়া মসজিদ মূলত একটি ইদ্গাহ কমপ্লেক্স। ১৪ একক জমি জুড়ে বিস্তৃত কমপ্লেক্সটির ভেতর রয়েছে: 

  • একটি মসজিদ
  • সুবিশাল মিনার (১৯৩ ফুট প্রায়)  
  • প্রায় ২০ হাজার লোক ধারন ক্ষমতা সম্পন্ন ইদগাহ
  • ডাকবাংলো 
  • এতিমখানা 
  • গাড়ি পার্কিং বিশাল স্পেস 
  • পুকুর
  • লেক
  • বিশাল বাগান
  • মহিলাদের পৃথক নামাজের স্থান

গুঠিয়া মসজিদে একত্রে ১৫০০ জন মুসল্লী একত্রে নামাজ আদায় করতে পারবে। মসজিদটির ডিজাইনে দেখা মিলে ইউরোপ, এশিয়া ও মধ্য প্রাচ্যের পপুলার মসজিদগুলোর ছাপ যা একে করে তুলেছে নান্দনিক। ব্যবহার করা হয়েছে উন্নত মানের কাচ, ফ্রেম ও বোস স্পিকার। মসজিদটির মেরামতের জন্য সর্বদা ৩০ জন খাদেম নিয়জিত। 

তাছাড়া দর্শনীয় আরো কিছু জিনিস রয়েছে। যেগুলো হলো: জমজম কূপের পানি, (আরাফাত ময়দান, জাবালে রহমত, জাবালে নৃর, নবীজির জন্মস্থান, হাওয়া (আঃ) এর কবর স্থান) এর মাটি সংগৃহীত রয়েছে যা দর্শনার্থীরা দেখতে পারবেন। 

গুঠিয়া মসজিদের ছবি সমূহ

কিভাবে যাবেন গুঠিয়া মসজিদ 

গুঠিয়া মসজিদটি বরিশালের উজিরপুর উপজেলায় অবস্থিত। আপনি যদি বরিশালের যেকোনো স্থানেই থেকে থাকেন আপনাকে প্রথমেই নথুল্লাবাদ বাস স্যান্ডে আসতে হবে। এখান থেকে সিএনজি, মাহেন্দ্র অথবা অটোতে করে ১১ কিলোমিটার দূরে গুঠিয়া ইউনিয়নে যেতে হবে। 

এক্ষেত্রে যেকোনো ড্রাইভারকে বললেই নিয়ে যাবে। ভাড়ার পরিমাণ জন প্রতি ৪০ টাকা করে নিয়ে থাকবে। তাছাড়া রিজার্ভ করে গেলে সেটা অটো ড্রাইভার ও আপনার উপর নির্ভর করবে। তবে এমনিতে একটি মাহেন্দ্রতে ৮ জন করে যাওয়া যাবে।

বরিশাল বাদে অন্য কোনো বিভাগ থেকে আসলে আপনি যদি বরিশাল বিভাগের বাইরে কোনো স্থান থেকে আসতে চান তবে প্রথমেই বরিশাল আসতে হবে। এক্ষেত্রে বরিশালে আসার মাধ্যম গুলো হলো : বাস, লঞ্চ, প্লেন। 

পরিশেষে, এই ছিলো গুঠিয়া মসজিদ সম্পর্কে ব্যাসিক কিছু ধারনা। জানানো হয়েছে গুঠিয়া মসজিদে গিয়ে কি কি দেখতে পারবেন, কিভাবে যেতে পারবেন ও খরচ কত হবে সে সকল সম্পর্কে। শেষ করতে যাচ্ছি আল-হাদিস এর একটা বাক্যের মাধ্যমে যেখানে বলা হয়েছে “ যদি ধনী হতে চাও, বেশি বেশি ভ্রমণ করো” 

Leave a Comment