অর্থায়নের ধারণা | অর্থায়নের কাঠামো ও প্রয়োজনীয়তা | Concept of Finance

অর্থায়নের ধারণা বা অর্থায়ন মূলত কি এবং কোথা থেকে এর উৎপত্তি তার পাশাপাশি অর্থায়নের কাঠামো গত প্রয়োজনীয়তার সহজে ব্যাখ্যা করা হয়েছে উদাহরণসহ।

অর্থায়নের ধারণা সম্পর্কে সচ্ছ জ্ঞান থাকাটা সকলের জন্য খুব প্রয়োজন। বিশেষ করে ব্যবসা শাখার প্রতিটা শিক্ষার্থীর অর্থায়ন সম্পর্কে বিস্তারিত জানা জরুরি।

তাই অর্থায়নের ধারণা সংক্রান্ত খুটিনাটি বিষয় গুলো সহজে ব্যাখ্যা করার জন্য রয়েছি আমি সেলিম এবং আপনি আছেন আমার Salim Speaking নামক ব্লগে।

অর্থায়নের ধারণা | Concept of Finance

ল্যাটিন শব্দ ‘Finis’ থেকে ইংরেজি ‘Finance’ শব্দটির উৎপত্তি। তাই ব্যুৎপত্তিগতভাবে এর আভিধানিক অর্থ হলাে অর্থায়ন বা অর্থসংস্থান।

তবে ইংরেজি ‘Finance’ শব্দটি ‘Noun’ ও ‘Verb’ উভয় অর্থে ব্যবহৃত হয়। উদাহরণস্বরূপ বলা যায়, “সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের” জন্য একটি নতুন ভবন তৈরি করা হবে। এক্ষেত্রে স্বাভাবিকভাবেই প্রশ্ন এসে যায়, “এত বড় প্রকল্পের অর্থায়ন (Finance) করবে কে?”

এখানে কিন্তু Finance শব্দটি Verb (Transative verb) অর্থে ব্যবহৃত হয়েছে। অর্থাৎ নির্দিষ্ট পরিকল্পনা বাস্তবায়নের জন্য অর্থ সংগ্রহ করার বাজেট হলাে অর্থায়ন বা Finance ।

আবার, Dictionary-তে দেখা যাবে ‘Finance’ শব্দটি ‘Noun’ হিসেবেও ব্যবহৃত হয়ে থাকে। আমরা ‘Principles of Finance’ বিষয়টি পড়ছি এখানে Subject এর নাম হিসেবে Finance শব্দটি হলাে Noun।

প্রখ্যাত লেখক Khan and Jain এর মতে, “Finance may be defined as the art and science of managing money.” এখানে ‘Finance’ শব্দটি Noun হিসেবে ব্যবহৃত হয়েছে।

অর্থায়নের ধারণাটির বিস্তারিত রূপ নিচের চিত্রের সাহায্যে উপস্থাপন করা হলাে :

Structure and Full Form of Finance | salimspeaking.com

তাহলে দেখা যাচ্ছে, বিনিয়ােগ পরিকল্পনা থেকে শুরু করে মূলধন সংগ্রহ → বিনিয়ােগ → মূলধনের রক্ষণাবেক্ষণ → মুনাফা সংরক্ষণ ও বণ্টন পর্যন্ত যাবতীয় কাজই অর্থায়নের আওতাভুক্ত। মূলত অর্থের প্রয়ােজনীয়তা নির্ধারণ, উৎস শনাক্তকরণ, অর্থ সংগ্রহ এবং অর্থের পরিকল্পিত ব্যবহারকে অর্থায়ন বলে।

এছাড়াও, অর্থায়ন কি? অর্থায়ন কাকে বলে – এই সম্পর্কেও বিভিন্ন বিশেষজ্ঞদের বিভিন্ন মতামত রয়েছে যেগুলো দেখে নিতে পারে। এতে বিষয় গুলো বুজতে সুবিধা হবে।

ধারণামূলক কাঠামাের প্রয়ােজনীয়তা

অর্থায়নের ধারণামূলক কাঠামাে বলতে অর্থায়নের সাংবিধানিক তত্ত্ব ও প্রায়ােগিক নীতিমালাকে বােঝায়, যার উপর ভিত্তি করে অর্থায়নের পরিকল্পনা রচিত, পরিচালিত ও নিয়ন্ত্রিত হয়।

অর্থায়নকে সর্বজনীন করার জন্য ধারণামূলক কাঠামাের প্রয়ােজনীয়তা অনস্বীকার্য। ধারণাগত কাঠামাে হচ্ছে ধারণা ও উদ্দেশ্যের একটি সুশৃঙখল ব্যবস্থা যা নিয়মাবলি ও মানের একটি সংগতিপূর্ণ সেট সৃষ্টির দিকে পরিচালিত করে।

ধারণাগত কাঠামাে সিদ্ধান্ত, সহায়ক, উদ্দেশ্য, ব্যবসায় প্রক্রিয়া এবং সম্পদ প্রয়ােগ উন্নয়নের মাধ্যমে প্রাতিষ্ঠানিক লক্ষ্য অর্জনে সহায়তা করে।

যে সকল কারণে অর্থায়নের ধারণামূলক কাঠামাে প্রয়ােজন তা নিচে আলােচনা করা হলাে :

  • আর্থিক পরিকল্পনা প্রণয়ন, পরিচালনা ও নিয়ন্ত্রণ কার্যক্রমের নির্দেশক হিসেবে কাজ করে।
  • পরিবর্তিত পরিস্থিতির সাথে সামঞ্জস্য বিধান করে
  • অর্থায়ন পেশার মর্যাদা বৃদ্ধি করে
  • নির্ভুল ও গ্রহণযােগ্য আর্থিক প্রতিবেদন প্রস্তুতে সহায়তা প্রদান করে
  • সর্বোত্তম বিকল্প পদ্ধতি নির্বাচনে সহায়তা করে
  • অর্থায়ন কার্যাবলির সর্বজনীনতার সৃষ্টি করে

সুতরাং বলা যায়, সম্পদের সুষ্ঠু ব্যবস্থাপনা এবং পর্যবেক্ষণরত সেবা শক্তিশালী করার জন্য প্রত্যেক ব্যবস্থাপকের দায়-দায়িত্বের একটি অপরিহার্য উপাদান হচ্ছে আর্থিক ব্যবস্থাপনা কাঠামাে। এটি হলাে সমগ্র প্রতিষ্ঠানের আর্থিক ব্যবস্থাপনার একটি আদর্শ ধারণার জন্য অবিচ্ছেদ্য হাতিয়ার।

অর্থায়ন সম্পর্কে আরো জানতে ব্লগের ক্যাটাগরিতে বিধ্যমান Finance বিষয়টি চেক করুন। ধন্যবাদ।

বিঃদ্রঃ উক্ত বিষয়ের সকল তথ্য “অর্থায়নের নীতিমালা বই যার লেখক মোঃ বেনজীর রিজভী” থেকে সংগ্রহকৃত। পবিত্র কুরআন ব্যাতিত পৃথিবীর কোনো বই সম্পুর্ন ভাবে সঠিক নয় তাই ভুল ত্রুটি সংশোধন যোগ্য।

Leave a Comment